ক্লাসরুমের চার দেয়ালে আটকে পড়া জরাজীর্ণ এই শিক্ষা ব্যবস্থায় রয়েছে জীবনমুখী শিক্ষার অভাব। ভবিষ্যৎ কর্মক্ষেত্রের জন্য প্রস্তুতি নিতে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি নিজের দক্ষতা তৈরি করে নেওয়ার তাগিদ বাড়ছে তরুণ সমাজের মধ্যে। এসব দক্ষতা অর্জন করতে মানুষ অফলাইনের চেয়ে এখন অনলাইনমুখী হচ্ছেন বেশি- সময় ও অর্থ দুটোই এতে সাশ্রয় হয়। চাহিদার সঙ্গে তাল মিলিয়ে তাই বাড়ছে অনলাইনে পড়ালেখা করার প্ল্যাটফর্ম। তবুও তরুণদের দক্ষতা এবং ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে একটা দূরত্ব থেকেই যাচ্ছে। এর কারণগুলো খুঁজে বের করে সেগুলো সমাধানে সচেষ্ট হয়েছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী ইয়ানুর ইসলাম পিয়াস এবং গালিব হাসান খান। প্রতিষ্ঠা করেছেন বহুব্রীহি। বহুব্রীহি একটি অনলাইন ট্রেনিং মার্কেটপ্লেস, যেখানে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন বিষয়ের ওপর অনলাইন কোর্সে অংশ নিয়ে ভবিষ্যতের প্রস্তুতি গ্রহণ করতে পারেন; কর্মক্ষেত্রে নিজেদের তুলনামূলক উন্নত অবস্থানে নেওয়ার প্রস্তুতি গ্রহণ করতে পারেন।

কোর্সগুলো বিভিন্ন কোম্পানির সঙ্গে যৌথভাবে বানানো হয়ে থাকে; আবার ফ্রিল্যান্স এক্সপার্টদের সহায়তায়ও বানানো হয়ে থাকে। আর কোর্সগুলো মূলত ভার্সিটির শিক্ষার্থীদের জন্য বেশি উপযুক্ত। বহুব্রীহির কোর্সগুলোর মধ্যে রয়েছে পাইথন প্রোগ্রামিং, মাইক্রোসফট পাওয়ারপয়েন্ট, মাইক্রোসফট এক্সেল, ওয়ার্ডপ্রেস, লারাভেল, সলিডওয়ার্কস, উকমার্স, তড়িৎ বর্তনী, ইইই ভর্তি প্রস্তুতি, অটোক্যাড এবং অ্যাডোবি ইলাস্ট্রেটরসহ অন্যান্য অনলাইন কোর্স! এই কোর্সগুলো যে কোনো অফলাইন ট্রেনিংয়ের চেয়ে ৮০ শতাংশ বেশি সাশ্রয়ী। প্রতিনিয়ত বিভিন্ন কোম্পানির সঙ্গে চুক্তির মাধ্যমে নতুন নতুন কোর্স যুক্ত করা হচ্ছে!

২০১৬ সালে বুয়েটের দ্বিতীয় বর্ষে থাকতে পিয়াস ও গালিব বহুব্রীহি নিয়ে কাজ শুরু করেন। টিউশনির জমানো টাকা ও বুয়েটের একজন সিনিয়রের বিনিয়োগে আস্তে আস্তে বহুব্রীহি গড়ে উঠতে থাকে। ২০১৮ সালের মে মাসে তারা পূর্ণাঙ্গ অনলাইন কোর্স মার্কেটপ্লেস হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। খুব দ্রুতই ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী ও তরুণ পেশাজীবীদের মাঝে এটি জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। সম্প্রতি এটি গ্রামীণফোন এক্সেলারেটরের ২.০-এর দুই মাসব্যাপী প্রি-এক্সেলারেটর প্রোগ্রামে অংশ নিচ্ছে।

Bohubrihi founders - feature on samakal

পিয়াস বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে প্রতিটি কোর্সে থাকবে লাইফ-টাইম এক্সেস এবং সেলফ পেসড লার্নিং সুবিধা। অর্থাৎ যে কেউ কোর্সে এনরোল করার পর যখন ইচ্ছা তখন কোর্সের ম্যাটেরিয়ালগুলো থেকে শিখতে পাবেন। আজীবনের জন্য কোর্সের এক্সেস তাদের কাছে রয়ে যাবে। প্রতিটি কোর্সে প্রয়োজনীয় রিসোর্স সরবরাহ করছেন তারা, থাকছে অনুশীলন সমস্যা, সার্ভে। এ ছাড়া কোনো সমস্যায় সেটি সমাধানের জন্য রয়েছে ফোরাম এবং লাইভ ভিডিও সাপোর্ট; যেখানে সরাসরি কোর্সের ইন্সট্রাক্টরের কাছ থেকে পরামর্শ নেওয়া যায়। কোর্স শেষে প্রদান করা হচ্ছে সার্টিফিকেট। বাংলাদেশে তারাই একমাত্র দিচ্ছেন অনলাইনে ‘Accredited Course‘-এর সুবিধা। বহুব্রীহির অসাধারণ একটি ব্লগ সেকশন রয়েছে, যা সবার জন্য উন্মুক্ত। এ ছাড়াও তাদের ফোরাম এবং ফেসবুক গ্রুপে যে কোনো সমস্যার মিলবে তাৎক্ষণিক সমাধান।

বহুব্রীহির লক্ষ্য সবার জন্য মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করা, কর্মমুখী শিক্ষার প্রসার ঘটানো, দেশে বেকারত্ব দূর করা, দক্ষ জনবল তৈরি করা, আত্ম কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা। বহুব্রীহির তিন বছরের যাত্রায় টিমে রয়েছেন ইয়ানুর ইসলাম পিয়াস (CEO), গালিব হাসান খান (CFO), শাহরিয়ার হোসাইন নাফিস, তামজিদুল আলম, তাহসিন ইসলাম এবং ফাহিম আবিদ অর্ণব। তারা সবাই বুয়েট এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

Rate This Article

Leave a Comment

avatar
  Subscribe  
Notify of
Do NOT follow this link or you will be banned from the site!