ফেসবুক পেইজ গুরুত্বপূর্ণ কেন? (ভিডিও)

ফেসবুক পেইজ গুরুত্বপূর্ণ কেন? (ভিডিও)

আপনি যদি ফেসবুকে মার্কেটিং করতে চান, তাহলে আপনার বিজনেস পেইজ থাকা জরুরি। কিন্তু কী কারণে? জেনে নিন এ ভিডিওতে। আপনার সুবিধার্থে ভিডিওর নিচে মূল পয়েন্টগুলো যোগ করে দিয়েছি আমরা।

ভিডিওটি বহুব্রীহির ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং অর্গানিক টুল কোর্স থেকে নেয়া।

ডিজিটাল বিভিন্ন স্কিলের উপর ভিডিও দেখার জন্য বহুব্রীহির ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন।

ধরুন, আপনার অরিগ্যামির (Origami) শখ আছে। বা আপনি গান গাইতে ভালোবাসেন। বা রান্না করতে পছন্দ করেন। অথবা ফটোগ্রাফি করতে পছন্দ আপনার। এসব শখ সবার সাথে শেয়ার করতে চাইছেন। কীভাবে গান করেন বা রান্না করেন বা অরিগ্যামি বানান, তা দেখাতে চাইছেন। কিন্তু সবাইকে তো আর ফ্রেন্ড লিস্টে রাখতে পারবেন না। লিমিট ৫০০০। আবার যত্রতত্র সবাইকে ফেসবুক ফ্রেন্ড লিস্টে রাখতে চাইছেনও না।

তাহলে সবচেয়ে সহজ উপায় কী?

একটা ফেসবুক পেইজ খুলে সেখানে এসব নিয়ে পোস্ট দেয়া। সে পেইজে ছবি-ভিডিও আপলোড করলে তা সবাই দেখতে পাবেন, আপনাকে তাদের মতামত জানাতে পারবেন, তাদের ভালো লাগা বা মন্দ লাগাও জানাতে পারবেন।

ফেসবুক সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য

  • প্রতিদিন ইউজাররা ৪.৭৫ বিলিয়ন আইটেম শেয়ার করছেন।
  • প্রতিদিন ৩৫০ মিলিয়ন ফটো আপলোড হচ্ছে।
  • প্রতিদিন ১০০ মিলিয়ন ঘণ্টার ভিডিও দেখা হচ্ছে ফেসবুকে।
  • ৬০ মিলিয়ন স্ট্যাটাস আপডেট করা হয় প্রতিদিন।
  • প্রতিদিন ফেসবুক সাইট বা অ্যাপে গড়ে ৮ বার করে ঢোকা হয়।
  • প্রতিদিন গড়ে ৪০ মিনিট সময় আমরা দিই ফেসবুকে।
  • ৪০ মিলিয়ন বাংলাদেশি ইউজার রয়েছেন ফেসবুকে।

ফেসবুক পেইজ সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য

  • একজন ফেসবুক ইউজার গড়ে ৭০টা পেইজ লাইক করে বা ফলো করেন।
  • ৭০ মিলিয়ন অ্যাক্টিভ বিজনেস পেইজ আছে ফেসবুকে।
  • প্রায় ৫০ হাজার অ্যাক্টিভ বাংলাদেশি বিজনেস পেইজ আছে।
  • ৩৯% ইউজার বলেন যে, কোনো বিশেষ অফার পাবার জন্য তারা ফেসবুক পেইজ ফলো করেন।

ফেসবুক প্রোফাইল ও পেইজের মধ্যে পার্থক্য কী?

ফেসবুক প্রোফাইল ফেসবুকে আপনার একটি ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট। এখানে আপনি আপনার নিজের বা পরিবার ও বন্ধুবান্ধব সম্পর্কে কথাবার্তা বলেন। সাথে ব্যক্তিগত আপডেট শেয়ার করেন। আপনার যদি কোনো ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠান নিয়ে আগ্রহ থাকে, সেসবের আপডেট থাকতে পারে সেখানে। প্রোফাইলের এসব আপডেট আপনার ফ্রেন্ড লিস্টের লোকজনের মধ্যে সীমাবদ্ধ। আবার আপনি ৫০০০ জনের বেশি ফ্রেন্ড রাখতেও পারবেন না লিস্টে।

অন্যদিকে পেইজের রীচ অনেক বেশি। যারা আপনার পেইজে লাইক দেবেন এবং ফলো করবেন – সবাই আপনার আপডেট পাবেন। লাখ-লাখ, মিলিয়ন-মিলিয়ন রীচ হওয়াও সম্ভব এখানে। পেইজের মাধ্যমে লোকে আপনার ব্যবসা সম্পর্কে জানবে।

যেকোনো কিছু সম্পর্কে ফেসবুক পেইজ রয়েছে। যেমন, বিখ্যাত লেখক থেকে শুরু করে বুটিক শপ।

ফেসবুক পেইজ দিয়ে কী কী করা যায়?

  • যারা পেইজে লাইক দেবেন, তাদের সাথে কানেক্ট হতে পারবেন ও ব্যবসা সম্পর্কিত তথ্য শেয়ার করতে পারবেন। তাদের সাথে বিভিন্ন পোস্ট শেয়ার করতে পারবেন।
  • নিজের পেইজ থেকে কমেন্ট করতে পারবেন।
  • কেউ পেইজের ইনবক্সে মেসেজ পাঠালে উত্তর দিতে পারবেন।
  • আপনার প্রোডাক্ট শোকেস করতে পারবেন। প্রোডাক্টের দাম ও অফার জানাতে পারবেন কাস্টমারদেরকে। প্রোডাক্ট অর্ডার নিতে পারবেন।
  • চাকরির বিজ্ঞপ্তি দিতে পারবেন।
  • পেইজ থেকে অ্যাডভার্টাইজিং ক্যাম্পেইনও রান করতে পারবেন।
  • পেইজের ইউজার ও ফলোয়ারদের সম্পর্কে ডেটা পাবেন। যেমন, তারা পেইজে এসে কী কী করেন বা কোন বিষয়ে তাদের আগ্রহ রয়েছে।
  • ব্যবসার শুরুর দিকে ওয়েবসাইট বানানো ও চালানো সম্ভব নাও হতে পারে অনেকের জন্য। এক্ষেত্রে ফেসবুক পেইজ বিনা মূল্যে ব্যবহার করে ব্যবসার প্রসারে কাজে লাগানো সম্ভব।
Bohubrihi
Follow us
0 0 vote
Article Rating
Rate This Article
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments