You are currently viewing পাইথন কেন শিখবেন?

পাইথন কেন শিখবেন?

কম্পিউটার সায়েন্সের খবর রাখেন অথচ পাইথন (Python) প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজের নাম শোনেননি এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া যাবে না। ডেটা অ্যানালিসিস থেকে শুরু করে জটিল অ্যাাপ্লিকেশন বানানো – সব ক্ষেত্রেই পাইথনের ব্যবহার জনপ্রিয়। শুধু এ ল্যাঙ্গুয়েজটি শিখে আপনি একসাথে কয়েকটি কাজে দক্ষ হয়ে উঠতে পারবেন। কিন্তু কীভাবে? সে ব্যাপারেই এবারের লেখা থেকে জানুন।

পাইথন (Python) কী?

পাইথন হাই-লেভেলের একটি প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ। অর্থাৎ এটি মানুষের ভাষার কাছাকাছি। এ কারণে এর মাধ্যমে আপনি সহজে প্রোগ্রাম লিখতে ও বুঝতে পারবেন।

পাইথন নামটি কীভাবে এলো?

পাইথনের নামকরণের গল্পটা বেশ মজার। ডাচ প্রোগ্রামার গুইডো ভ্যান রসাম (Guido van Rossum) যখন এটি তৈরি করছিলেন, তখন তিনি Monty Python’s Flying Circus নামের একটি কমেডি সিরিজের স্ক্রিপ্টও পড়ছিলেন। হঠাৎ তার মনে হলো, নিজের বানানো প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজটির জন্য একটি ছোট, ইউনিক আর কিছুটা রহস্যময় একটা নাম দরকার। তখন তিনি পাইথন নামটিকে বেছে নেন।

পাইথনের জনপ্রিয়তার কারণ কী?

অন্যান্য ল্যাঙ্গুয়েজের তুলনায় পাইথনের বেশি জনপ্রিয়তার কারণ হলো, এটি লেখার নিয়মগুলো সহজ। যে কারো পক্ষে ল্যাঙ্গুয়েজটি কম সময়ে শেখা ও ব্যবহার করা সম্ভব। এমনকি যারা প্রোগ্রামার নন, তাদের জন্যও। ল্যাঙ্গুয়েজটির মাধ্যমে ডেটা অ্যানালিসিসের কাজ যেমন করা যায়, তেমনি করা যায় সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টের মতো জটিল কাজ। তাই ডেভেলপাররা একে নিজেদের স্কিল সেটে রাখতে পছন্দ করেন।

পাইথন কেন শিখবেন?

পাইথন ডেভেলপারদের চাহিদাঃ টেকনোলজি প্রতিষ্ঠানগুলোতে পাইথন ডেভেলপারদের চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে। সবচেয়ে বেশি চাহিদাসম্পন্ন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজগুলোর প্রতিটি তালিকায় একে দেখতে পাবেন।

নন-প্রোগ্রামিং ফিল্ডে সুবিধাঃ আপনি যদি প্রফেশনাল প্রোগ্রামার নাও হয়ে থাকেন, যেকোনো ফিল্ডে পাইথন দিয়ে খুব কম সময়ে চমৎকারভাবে ডেটা অ্যানালিসিস করতে সক্ষম হবেন। এ স্কিল আপনাকে অন্যদের চাইতে আলাদা করে তুলে ধরবে।

পাইথনের সুবিধা কী কী?

  • পাইথন কোড লেখা, বোঝা ও শেখা সহজ।
  • পাইথন ল্যাঙ্গুয়েজের নিয়মগুলো সহজ বলে ডেভেলপমেন্টে কম সময় লাগে।
  • কোড লেখার সময় কোনো ভুল হলে তা নির্ণয় করা বা ডিবাগিং তুলনামূলকভাবে সহজ।
  • দরকারি ফাংশনগুলোর জন্য পাইথনের বিশাল লাইব্রেরি সাপোর্ট রয়েছে।
  • একবার কোড লিখে বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে আপনি কোড চালাতে পারবেন।
  • ভ্যারিয়েবল বা ডেটা টাইপ নিয়ে আপনাকে খুব বেশি মাথা ঘামাতে হবে না।
  • পাইথন ওপেন সোর্স ল্যাঙ্গুয়েজ হবার কারণে যেকোনো অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্টে যেকোনোভাবে আপনি একে ব্যবহার করতে পারেন।

পাইথনের অসুবিধা কী কী?

  • পাইথনের কোড এক্সিকিউশনে সময় লাগতে পারে।
  • পাইথনের মেমরি ব্যবহারের পরিমাণ অন্য বহু ল্যাঙ্গুয়েজের তুলনায় অনেক বেশি। তাই যেকোনো প্রজেক্ট বানানোর সময় মেমোরি কম নষ্ট হবার দিকে নজর দিতে হয়।
  • পাইথনে ডেটাবেইজ অ্যাক্সেস নিয়ে বড় কাজ করা কঠিন।
  • ডেটা টাইপ ডায়নামিক বলে পাইথন কোড রান করার সময় ঝামেলা হবার ঝুঁকি থাকে।
  • মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের জন্য পাইথন খুব বেশি উপযোগী নয়।

পাইথন কোথায় ব্যবহার করতে পারবেন?

  • ডেটা অ্যানালিসিস ও ভিজ্যুয়ালাইজেশনে
  • ইন্টারনেট থেকে ডেটা কালেকশনে বা স্ক্র্যাপিংয়ে
  • অটোমেশনের কাজে
  • ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট ও টেস্টিংয়ে
  • গেম ডেভেলপমেন্টে
  • মেশিন লার্নিং আর আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স প্রজেক্টে

পাইথনের কিছু লাইব্রেরি

পাইথন ওপেনসিভি (OpenCV)

ইমেজ প্রসেসিং করার জন্য লাইব্রেরিটি ব্যবহৃত হয়। অ্যাডোবি ফটোশপ ও ইলাস্ট্রেটরের বহু কাজ এ লাইব্রেরি দিয়ে করতে পারবেন।

পাইটর্চ (PyTorch)

এটি একটি মেশিন লার্নিং লাইব্রেরি। এর সাহায্যে বিভিন্ন ডায়নামিক কম্পিউটেশনাল গ্রাফ আর গ্র্যাডিয়েন্ট স্বয়ংক্রিয়ভাবে নির্ণয় করতে পারবেন।

টেন্সরফ্লো (TensorFlow)

মেশিন লার্নিং বিষয়ক কাজের জন্য লাইব্রেরিটি সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়। বিশেষ করে ডিপ লার্নিং মডেল বানানোতে এর ব্যবহার উল্লেখযোগ্য।

নাম্পি (Numpy) লাইব্রেরি

মূলত বিভিন্ন গাণিতিক কাজের জন্য ব্যবহার করতে পারবেন।

পাইথনের কিছু ফ্রেমওয়ার্ক

জ্যাংগো (Django) ফ্রেমওয়ার্ক

জ্যাঙ্গো এমন একটি ফ্রেমওয়ার্ক যেটি দিয়ে আপনি খুব কম সময়ে নিরাপদ ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন বানাতে পারবেন। যেমনঃ

  • কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম
  • উইকি
  • সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইট
  • নিউজ সাইট

এর সুবিধা হলোঃ

  • কম সময়ে সেটআপ করতে পারবেন
  • যেকোনো ডেটাবেইজের সাথে ব্যবহার করতে পারবেন
  • ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্টের বহু ফাংশনালিটি এক জায়গায় পাবেন
  • ইউজার ইন্টারফেস ব্যবহার করা সহজ

সুপরিচিত বহু অ্যাপ্লিকেশন ও ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্টে জ্যাঙ্গো ব্যবহার করা হয়েছে। যেমনঃ

  • Disqus
  • Mozilla
  • National Geographic
  • Instagram
  • Open Stack

ফ্লাস্ক (Flask) ফ্রেমওয়ার্ক

ফ্লাস্ক ফ্রেমওয়ার্কে একটি ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনের বেসিক ফিচারগুলো পাবেন। প্রয়োজন অনুযায়ী এক্সটেনশন ব্যবহারের সুবিধা রয়েছে এতে। সাধারণত প্রোটোটাইপিংয়ের জন্য এটি বেশ কাজে দেয়। এর কারণ হলোঃ

  • ফ্রেমওয়ার্কের সাথেই ডেভেলপমেন্ট সার্ভার রয়েছে
  • তাড়াতাড়ি ডিবাগিং করা যায়
  • ইউনিট টেস্টিংয়ের সাপোর্ট রয়েছে
  • কোডবেইজের সাইজ তুলনামূলকভাবে ছোট হয়
  • সহজে ডেটাবেইজ ইন্টিগ্রেশন করা সম্ভব

হাগ (Hug) ফ্রেমওয়ার্ক

এ ফ্রেমওয়ার্কটি দিয়ে আপনি মূলত কোনো অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রামিং ইন্টারফেস (API) একবার ব্যবহার করে পরে বারবার কাজে লাগাতে পারেন। অল্প কোড দিয়ে কাজ করার ফ্লেক্সিবিলিটি এখানে পাওয়া যায়।

পাইথন কীভাবে শিখবেন?

পাইথনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট

পাইথন শেখার যাবতীয় তথ্য এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে পাবেন। নিজে নিজে শিখতে হলে ডকুমেন্টেশন পড়ুন। দরকারি রিসোর্সগুলো এক জায়গায় পাবার জন্য Python Developer’s Guide রয়েছে।

মজিলা ফাউন্ডেশন

মজিলা ফাউন্ডেশনের ‘MDN Web Docs’ থেকে সরাসরি পাইথন শিখতে পারবেন না। সেখানে মূলত জ্যাঙ্গো ফ্রেমওয়ার্ক শেখার গাইড আর রিসোর্স পাবেন।

অনলাইন কোর্স

সম্পূর্ণ বাংলায় পাইথন শেখার জন্য বহুব্রীহিতে বেশ কয়েকটি কোর্স রয়েছে। আপনার জানার লেভেল আর পছন্দ অনুযায়ী কোর্স করতে পারেন।

বেসিক লেভেল

একেবারে নতুন হয়ে থাকলে আপনার জন্য ‘Python for Beginners’ কোর্স উপযুক্ত হবে। মূলত পাইথনের বেসিক সব ধারণা ও সেগুলোর ব্যবহার নিয়ে জানবেন এ কোর্সে। এর জন্য রয়েছে দরকারি সব প্র্যাকটিস প্রবলেম।

অ্যাডভান্সড লেভেল

ওয়েব আর অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্টের জন্য আপনি যদি পাইথন ব্যবহার করতে চান, তাহলে জ্যাঙ্গো ফ্রেমওয়ার্ক শিখতে পারেন ২টি কোর্সেঃ

২টি কোর্সেই আপনি প্রজেক্টসহ প্র্যাকটিক্যাল কাজ শেখার সুযোগ পাবেন।

ক্যারিয়ার লেভেল

পাইথন আর জ্যাঙ্গো ফ্রেমওয়ার্ক শিখে পুরোপুরি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ক্যারিয়ার বানাতে চাইলে আপনাকে আরো কয়েকটি ল্যাঙ্গুয়েজ শিখতে হবে। যেমন, জাভাস্ক্রিপ্ট। সাথে শিখতে হবে ডেটাবেইজের ব্যবহার। এগুলো এক জায়গায় পাবেন বহুব্রীহির পাইথন ও জাভাস্ক্রিপ্টভিত্তিক ফুল স্ট্যাক ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কোর্স প্রোগ্রামে। মেন্টর সাপোর্ট, ক্যারিয়ার গাইডেন্স আর পোর্টফোলিও সাপোর্টসহ ৬ মাসের এ অনলাইন ট্রেনিংয়ে আপনি মোট ১১টি প্রজেক্ট শিখবেন। পাশাপাশি নিজে বানাবেন ১১টি প্রজেক্ট। কোর্স শেষ করার পর আপনার সিভি আর পোর্টফোলিও পাঠিয়ে দেয়া হবে বহুব্রীহির পার্টনার কোম্পানি আর ফার্মগুলোতে।

Nishat Anjum Lea
0 0 votes
Article Rating
Rate This Article
Subscribe
Notify of
guest
3 Comments
most voted
newest oldest
Inline Feedbacks
View all comments
Muhammad Emanur Rahaman
Muhammad Emanur Rahaman
March 22, 2021 2:24 pm

Thanks,Bohubrihi

Nisath Tasmin
Nisath Tasmin
September 2, 2021 1:59 pm

Thanks for this important information.

Nazmul Haque
Nazmul Haque
June 19, 2021 11:18 pm

Thanks from Fulbarigate.
আমার বহুদিনের সখ পাইথন শিখবো।
I want to learn Python. But…